টেকনাফ

টেকনাফে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি ও  প্রতারণার দায়ে ফরিদ আটক

174views

মো: শাহীন, টেকনাফ ::::

টেকনাফে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি ও  প্রতারণার দায়ে মোহাম্মদ ফরিদ (৩৫) নামে এক ব্যাক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

গত সোমবার টেকনাফ থানা পুলিশের একটি টিম গোপন সংবাদে হ্নীলা ইউপির দরগা এলাকা থেকে  তাকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে নগদ সাড়ে ১০ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়েছে।

আটক ফরিদ হলেন, উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গিখালী এলাকার আবু শামার ছেলে।

এ ঘটনায় হ্নীলা ইউপির আলীখালী এলাকার কালা চানের ছেলে আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে টেকনাফ মডেল থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়।

মামলার বাদী আনোয়ার বলেন, গত সেপ্টেম্বর মাসে থানায় ভাই রিদুয়ানকে একটি মামলায় পলাতক আসামি করা হয়। এ খবরে আটক ফরিদ পুলিশের সাথে ভাল সম্পর্কের কথা বলে মামলার আইওকে আড়াই লাখ টাকা দিয়ে রিদুয়ানকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। এমনকি তার দাবীর টাকা দিতে অনিহা দেখালে পরবর্তীতে পুলিশের মাধ্যমে আটক করে ক্রসফায়ারের হুমকি দেয়। পরে বিভিন্ন কলা কৌশল করলে কোন উপায় না দেখে গত ১১ সেপ্টেম্বর ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা ফরিদকে দেওয়া হয়। এর পর কিছুদিন যেতে না যেতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর ভাই রেদুয়ানকে পুলিশ আটক করে আদালতে পাঠায়।  এ ব্যাপারে ফরিদের কাছে জানলে চাইলে সে নানা তালবাহানা শুরু করেন।
গত ৪ অক্টোবর বিষয়টি জানাতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে যাওয়ার পথে নাফ ফিলিং স্টেশনের সামনে ফরিদ একা পেয়ে অর্তকিত হামলা শুরু করে। এই হামলা থেকে রক্ষা পেতে পালালে পিছু ধাওয়া করে আটকে মারধরে আহত এবং নগদ সাড়ে ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।

তিনি আরও বলেন, সেখান থেকে আমি কোন মতে রক্ষা পেয়ে থানায় প্রতারক ফরিদের বিরুদ্ধে এ সব বিষয় তুলে ধরে একটি অভিযোগ দায়ের করি।

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা পরির্দশক (অপারেশন) রাকিবুল ইসলাম বলেন, পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদা আদায় ও প্রতারনা মামলা রুজু করে সোমবার কক্সবাজার আদালতে প্রেরন করা হয়।