টেকনাফ

সাবরাং এ মৃত নারীকে জীবত দেখিয়ে ভূয়া দলিল সম্পাদন

528views
নিজস্ব প্রতিনিধি, টেকনাফ::::
টেকনাফের সাবরাং এ নিহত এক নারীকে জীবিত দেখিয়ে ভূয়া দলিল সম্পাদন করে জমি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে নিহতের ছেলে আলী হোছন বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভূমি কার্যালয় ও থানায়। এ নি য় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, টেকনাফের সাবরাং মৌজার বিএস ২৩০৫ ও ২৩০৬ নম্বর খতিয়ানের রেকডিয় মালিক মোহাম্মদ হাছু প্রকাশ হাছু সিকদার।  তিনি মৃত্যুর পর জমির মালিক হন ৮ পুত্র ও ৬ কণ্যা। তাদের মধ্যে কন্যা কালা বানু বিগত ২০১১ সালের ৮ জুলাই মৃত্যু বরন করেন। নিহত কালা বানুর তিন পুত্র ও তিন কণ্যা রেখে যায়।

তবে গত ২০১৮ সালের ১৮ এপ্রিল টেকনাফ ডেইল পাড়া এলাকার হাছন আহম্মদের স্ত্রী সোনা খাতুনকে নিহত কালা বানু সাজিয়ে সাবরাং মুন্ডার ডেইল এলাকার হাসু মিয়ার ছেলে হোছন আহম্মদ ও মৃত আব্দু শুক্কুরের ছেলে শেখ আহম্মদসহ কয়েকজন মিলে নিহত কালা বানুকে জীবিত দেখিয়ে ভূয়া আইডি র্কাড, জাল সনদ তৈরি করে টেকনাফ সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে ১২৪৫ নম্বর ভূয়া দলিল সম্পাদন করে। এ জাল দলিলের বিষয়টি জেনে নিহতের ছেলে সাবরাং মুন্ডার ডেইল এলাকার আইয়ুব আলীর ছেলে আলী হোসন বাদী হয়ে সোনা খাতুন, শেখ আহম্মদ, হোসন আহাম্মদসহ ৬ জনকে অভিযুক্ত করে টেকনাফ মডেল থানায় লিখিত একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। এছাড়া এই ভূয়া দলিলে নামজারী খতিয়ান সৃজন না করতে টেকনাফ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি)র কাছে লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে জানায়।

অভিযোগকারী আলী হোসন বলেন, আমার মা কালা বানু ২০১১ সালে মৃত্যু বরন করেছেন। মা মরনে তার সম্পত্তির লোভে পড়ে উপরোক্তরা ২০১৮ সালে নিহত মাকে জীবিত দেখিয়ে জাল দলিল সম্পাদন করেন। এ জাল দলিল সম্পাদনকারী প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।