আপনার কথাটেকনাফ

টেকনাফের হ্নীলায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে রাজমিস্ত্রীর আত্মহত্যা

27views

টেকনাফ প্রতিনিধি:::::
টেকনাফের হ্নীলায় গলায় ফাঁস লাগিয়ে আব্দুল আমিন (২৮) নামে এক রাজমিস্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন।
শনিবার (১৩ এপ্রিল) সকালে নিজ বাড়ী থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশটি উদ্ধার করা হয়।
নিহত আব্দুল আমিন উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের পশ্চিম সিকদার পাড়া এলাকার প্রবাসী নুরুল ইসলামের ছেলে। নিহত আমিনের এক স্ত্রী, এক সন্তান রয়েছে বলে জানায়। তবে পারিবারিক ভাবে কোন সুনিদিষ্ট অভিযোগ না থাকায় প্রশাসনিক কাযক্রম শেষ করে দাপনের প্রস্ততি চলছে বলে জানা গেছে।
তার পরিবারের দাবী, পারিবারিক কলহের জের ধরে সে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

জানা যায়, গত শুক্রবার রাতে আব্দুল আমিন শাশুর বাড়ীতে স্ত্রীর সাথে কথা কাটাকাটি ও মারধরের উপক্রম হয়ে চরম অভিমানে বাড়িতে চলে আসে। পরে শনিবার সকালের বিভিন্ন জনের মুঠোফোন রিসিভ না করায় ছোট ভাই আব্দুর রহমান বাড়ী গিয়ে অনেক ডাকাডাকি করে সাড়া শব্দ না পেয়ে জানালা ভেঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত ভাই এর মৃতদেহ দেথে চিৎকারে পরিবার ও আশপাশের লোকজন ছুটে এসে মৃৃতদেহ নামিয়ে ফেলে। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও পুলিশকে অবগত করা হয়। এ খবরে থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন।
পুলিশ কর্মকর্তা এসআই নূরুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। তবে খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।
এদিকে জানা যায়,গত ৪ বছর আগে প্রেমের সম্পর্কে পালিয়ে বিয়ে করেন ঊলুচামরীর নুর মোহাম্মদ প্র: নুরাইয়ার মেয়ে নুর আয়েশাকে। ছেলে পক্ষ প্রথমে এই বিয়ে মেনে না নিলেও পরে মেনে নেয়। তাদের সংসারে তিন বছরের মরিয়ম (৩) নামে কন্যা সন্তান রয়েছে। কিছুদিন পরই স্বামী পরিবারের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে পাশে আলাদা ঘর করে বসবাস করছে। প্রায় সময় সাংসার নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগে থাকতো। স্থানীয় মহিলা মেম্বার একাধিকবার সালিশও করেন। সম্প্রতি স্ত্রী নুর আয়েশা অসুস্থতার কারণে ডাক্তারের পরামর্শে স্বামীর সাথে রাতযাপন বন্ধ করে দেন। এ অজুহাতে স্ত্রী মেয়েসহ একমাস ধরে বাপের বাড়ি অবস্থান করছে। স্বামী আমিন সময়-অসময়ে শ্বাশুড় বাড়িতে গেলেও স্ত্রী ও শ্বাশুড় পক্ষের বেপরোয়া আচরণে ইতিপূর্বেও এই রাজমিস্ত্রী আত্মহননের চেষ্টা চালায়। স্বজনেরা পাহারায় রেখে রক্ষা করেন।